আপনার ধর্ম সমূহ

এবং মজার বিষয় হইলো, যতই আপনে মনে প্রাণে কেবল একটা ধর্মে বিশ্বাস করেন না কেন, আপনার ধর্ম কিন্তু অনেকগুলা। সাধারণত আপনার বিশ্বাসের ধর্মটা কেবল আপনার বিশ্বাস আর কিছু রিচুয়ালেই আটকা পইড়া থাকে। বিশ্বাসে আপনার ধর্ম একটা হইলেও, বাস্তবে আপনে অনুসরণ করেন মাল্টিপল রিলিজিয়ন। আপনার রিলিজিয়নের লিস্টটা অনেক লম্বা। তবে এদের মধ্যে প্রধানতম ধর্মগুলা হইলোঃ ক্যাপিটালিজম, কনজিউমারিজম আর সোশ্যালিজম। এইসব আলাদা আলাদা ধর্মের ঈশ্বরও আবার আলাদা আলাদা। কি ভয়ঙ্কর! এখন কোন রকমে আপনে এইসব ইজমের অস্তিত্ব স্বীকার কইরা নিলেও, এইগুলা যে আপানার ধর্ম এই কথা আপনে কিছুতেই স্বীকার করবেন না। এইটা স্বাভাবিক। কিন্তু আপনে স্বীকার না করলেও এইগুলা আপনার ধর্মই। কারণ ধর্মের কাজই হইল মানুষের জীবনের প্রতিটা মুহূর্তরে ডিকটেইট করা। আর এই ইজমগুলা তাই করতেছে, আপনার জীবনটারে প্রতি পদে পদে ডিকটেইট করতেছে। আপনেও সেইটা মাইনা নিতাছেন হাসিমুখেই। আপনে এইসকল ধর্মের একজন প্র্যাকটিকাল ধার্মিক। আপনার অনুসারিত এইসব ধর্মের মধ্যে একদম লেটেস্ট আর আপডেটেড ধর্মটা হইলোঃ টেকনো-রিলিজিয়ন। এই ধর্মে টেকনোলজিই সব। আপনার চিরায়ত ধর্মের ঈদ, দুর্গা পূজা আর ক্রিস্টমাসের মত টেকনো-রিলিজিয়নেও বিশেষ বিশেষ দিন আছে। তবে এইখানে দিনগুলি একটু আনপ্রেডিকটেবল। কখন ক্যামনে কোন দিন বিশেষ হইয়া যায় কেউ কইতে পারে না। যেমন কয়দিন আগে প্রিজমা ঝড় বইয়া গেল। ঘটনাটা ঘটলো আতকা। সকল টেকনো ধার্মিকরা প্রিজমা দিয়া ছবি আপলোড দিলো, এখনো দিতাছে। যারা একটু অধার্মিক, তাঁরা অবশ্য দেয় নাই। অধার্মিক লোকজন সব ধর্মেই কিছু থাইকাই যায়। এখন প্রশ্ন হইল, আপনে কেন এই টেকনো-রিলিজিয়নে এতটা ডেভোউটেড আর প্র্যাকটিকাল হইয়া গেলেন? আপনে এতটা ধার্মিক ক্যামনে হইলেন? উত্তর হইলো, এই ধর্মের সব একশন-রিয়েকশনই নগদ, তাৎক্ষনিক। কোন বাকী বক্কা নাই। আর আপনেও বাকীতে তেমন একটা বিশ্বাস করেন না। অতঃপর আপনে আপনার সবগুলা ধর্মের কোন অবদানরে অস্বীকার করবেন?

জুলাই ২২, ২০১৬।

Comments

comments

194 views

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *